হলে থাকতে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা জাবি শিক্ষার্থীদের

নিউজ ডেস্ক ঃ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আবাসিক হল ছাড়াতে নারাজি জানিয়ে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। অন্যদিকে রাষ্ট্রীয় সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করার জন্য হলে হলে গিয়ে শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার অনুরোধ জানিয়েছেন হল প্রশাসন।

হল প্রশাসনের অনুরোধে ইতোমধ্যে দুইটি হলের শিক্ষার্থীরা হল ছেড়ে দিয়েছে।অপরদিকে সরকারী নির্দেশনা অনুযায়ী জাবিতে সকল ধরণের পরীক্ষা স্থগিত করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। তবে ক্লাসের বিষয়ে কোনো নির্দেশনা দেওয়া হয়নি।

মঙ্গলবার বিকাল পাঁচটার দিকে হলে থাকার দাবিতে আন্দোলনকারীরা এক সংবাদ সম্মেলনে তারা জানান, নিরাপত্তার স্বার্থে আমরা এখন হল ছাড়তে রাজি না। আমরা হলেই থাকতে চায়। এজন্য আমাদের আন্দোলন করতে হলে আমরা সেটা অব্যাহত রাখবো। এর আগে মঙ্গলবার দুপুরে প্রশাসনের আশ্বাসে পূর্ব ঘোষিত দুপুর ১২টার বিক্ষোভ কর্মসূচি প্রত্যাহার করে আন্দোলনকারীরা।

দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের একটি বৈঠকের পরে আবারো আন্দোলন চলিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন তারা।বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বৈঠকের ব্যাপারে প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উর-হাসান যুগান্তরকে বলেন, বৈঠকে শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগ করার অনুরোধ জানানো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। যদি শিক্ষার্থীরা অন্যত্রে নিরাপত্তা চায় তবে আমরা সেটিও নিশ্চিত করবো বলে বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে মঙ্গলবার বিকালে হল প্রভোস্ট কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মোতাহার হোসেন বলেন, ইতোমধ্যে দুইটি হলের ফটক সিলগালা করা হয়েছে। বাকি হলগুলোতে শিক্ষার্থীরা অবস্থান করছে। ওই হলগুলোতেও আমাদের পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। আমাদের পক্ষ থেকে আর অনুরোধ জানানো হবে না। বাকিটা রাষ্ট্রীয় প্রশাসন দেখবে।

শহীদ রফিক-জব্বার ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেয়েদের হল থেকে শিক্ষার্থীরা নেমে গেছে বলে জানা গেছে। তবে মেয়েদের হলের কয়েকজন শিক্ষার্থী যুগান্তরকে বলেন, আমরা ছেলেদের হলের অবস্থা পর্যবেক্ষণ করবো। ছেলেরা যদি হলে থাকে তবে আমরাও আবার হলে উঠবো।

অপরদিকে শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বললে- তারাও রাষ্ট্রীয় সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধা রাখবে বলে জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, শুক্রবার জাবি শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করে স্থানীয় গেরুয়া গ্রামবাসী। শনিবার থেকে এর হামলার বিচার ও হল খোলার দাবিতে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন শুরু করে। একই দিন বিকালে প্রশাসনের নির্দেশনা উপেক্ষা করে হলের তালা ভেঙে শিক্ষার্থীরা অবস্থান শুরু করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here